সর্বশেষ সংবাদ :




» দেওয়ানগঞ্জ সদরে গৃহহীনদের জন্য দুর্যোগসহনীয় ঘর নির্মাণে অনিয়ম

Published: ১১. অক্টো. ২০১৯ | শুক্রবার

ওসমান হারুনী: জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলায় গৃহহীনদের জন্য দুর্যোগসহনীয় ঘর নির্মাণে অনিয়ম দুর্নীতি’র অভিযোগ উঠেছে।

অর্থ বছর চলে গেলেও এখনো চলছে কচ্ছব গতিতে গৃহহীনদের ঘর নির্মাণ প্রকল্পের কাজ। গৃহহীনদের প্রকল্প থেকে অর্থ লুটপাটের জন্য ঘর নির্মাণে প্লান, ডিজাইন, নির্মাণসামগ্রী গুণগত মান বজায় রাখা হচ্ছেনা। ঘর নির্মাণে ব্যাবহার করা হয়েছে নিম্নমানের নির্মাণসামগ্রী। দুর্যোগসহনীয় ঘরের চলছে দায়সারা নিম্নমানেরকাজ। বিষয়টি যেন দেখার কেউ নেই।

শুক্রবার দেওয়ানগঞ্জ উপজেলার সদর ইনিয়নের দুর্যোগসহনীয় ঘরের সুভিধাভোগী জামিরা কান্দা গ্রামের মৃত আন্নাছ আলী দয়ালের স্ত্রী মোছা: নুরজাহান নুর বেগমের ঘরটি কাজ সরেজমিনে দেখতে গেলে নুর জাহানসহ পরিবারের লোকজনের অভিযোগ করেন,ঘরটিতে তৈরীতে নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রীসহ অনিয়ম করা হচ্ছে। ঘরের খাম রট দিয়ে কলম্ব করে দেওয়ার নিয়ম থাকলেও বাহির থেকে রটবিহীন নিম্বমানের সিমেন্টের খাম লাগানো হয়েছে। ঘরের করিডোরের দুই ফুট কম দেওয়া হয়েছে। ঘরের জানালার ছানসেট দেওয়া কথা থাকলেও দেওয়া হয়নি।

রডবিহীন নিম্নমানে খাম ও গাছের ডাল দিয়ে চাল ! ছবি-ওসমান হারুনী

ঘরের চালের টিনের ছাউনি গাঁথা হয়েছে অত্যান্ত নিম্নমানের ছাল বাগল ঘড়ির কাঠ দিয়ে। ঘরের কাজ শেষ হতে না হতেই দুর্যোগসহনীয় ঘরের চালের কাঠ বেগে উঠছে। রান্না ঘরের খাম দেওয়া হয়েছে ইট গেথেঁ। ঘরের সামনে বারিন্দার অবস্থা আরো খারাপ কাজ। বারান্দার চার সিড়ি’র উপড়ে রট দিয়ে ঢালাই খাম দেওয়ার নিয়ম থাকলেও নিম্নমানের সিমেন্টের খাম ব্যাবহার করা হয়েছে। চালের টিন গাঁথতে স্ক্রু কম দেওয়া হয়েছে বলেও সুভিধাভোগীর ছেলে রহিম বাদশার অভিযোগ।
ঘর নির্মাণের অনিয়মের ব্যাপারে ঘরটি নির্মাণের পিআইসি কমিটি’র সভাপতি ও সদর উপি চেয়ারম্যান ছামিউল ইসলামের সাথে ফোনে কথা হলে তিনি জানান,আমি ঘরটি না দেখে কোন বক্তব্য দিতে পারবোনা।

জামিরা কান্দা গ্রামের মৃত আন্নাছ আলী দয়ালের স্ত্রী মোছা: নুরজাহান নুর বেগমের ঘর

জানা গেছে,দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ক্রাণ মন্ত্রনালয়ের অধীনে ২০১৮-২০১৯ অর্থ বছরের গ্রামীন অবকাঠামো রক্ষনা বেক্ষণ (টিআর) কর্মসূচির আওতায় গৃহহীনদের জন্য জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ সদর ইউনিয়নের ঘড়মা সোনাভান,ওয়াহেদ আলী, খড়মা গায়েন পাড়া লালবাহাদুর,তিলকপুর গ্রামের সুভিধাভোগী হামিদুরের একটিসহ ৫টি নিয়ে উপজেলায় ৫৬টি ঘর নির্মাণ করা হচ্ছে। প্রতিটি ঘর নির্মাণ ব্যায় ধরা হয়েছে ২লাখ ৫৮হাজার ৫৩১টাকা । প্রতিটি ঘরে সেমি পাকা দুটি রুম,একটি করিডোর, একটি বাথরুম ও একটি রান্নাঘর রয়েছে।

দুর্য়োগসহনীয় ঘর-ছবি সংগ্রহীত

অভিযোগ উঠেছে এ উপজেলায় গৃহহীনদের জন্য এসব ঘর নির্মাণের উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন সংশ্লিষ্টরা সঠিক তদারকি না করায় নিম্নমানের নির্মাণ সামগ্রী ব্যাবহার করে দায়সারা ভাবে কাজ চলছে। সিংহভাগ ঘর নির্মাণে সিমেন্ট বালু বেশি দিয়ে ইট কম ব্যাবহার করা হচ্ছে। ঘরের হাইট জিয়েল থেকে পিয়েল কমে ও নিম্বমানের করিডোরের পিলার,রান্না ঘর ও বাথরুমের পিড়া ইট কম ব্যবহার করে দায়সারা ভাবে কাজ করা হচ্ছে।

Share Button




খোঁজাখুঁজি

September 2021
M T W T F S S
« Aug    
 12345
6789101112
13141516171819
20212223242526
27282930  

বিজ্ঞাপন

    (সাংবাদিকতা স্বাধীনতা বিশ্বাসী) প্রয়োজনে ফোন:০১৭১৮৫১৪১২৬